মঙ্গলবার, ৩ এপ্রিল, ২০১৮

সিলেটের যানজট পরিস্থিতি নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন

এম এ সামাদ:বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশএই দেশে রয়েছে আয়তনের তুলনায় অধিক জনসংখ্যা।প্রতিনিয়ত গ্রাম ছেড়ে লোকজন এখন শহরে পারি দিচ্ছেন।আমাদের রাস্তা গুলি প্রয়োজনের তুলনায় অনেক ছুটো।ট্রাফিক সিগন্যাল লাইট না থাকার কারণে আমাদের এখনও ট্রাফিক পুলিশ উপর নির্ভরশীল  থাকতে হচ্ছে।

ট্রাফিক পুলিশ কে প্রতিনিয়ত হিমশিম করতে দেখা যায় রাস্তার মাঝে দাঁড়িয়ে শত শত গাড়ি,সি এন জি,রিক্সা নিয়ন্ত্রণ করতে।এই ক্রমবর্ধমান গাড়ি,সি এন জি নিয়ন্ত্রণে আমাদের প্রয়োজন অন্তত প্রতিটি পয়েন্টে সিগন্যাল লাইট।ট্রাফিক সিগন্যাল লাইট কার্যকরী হইলে ট্রাফিক পুলিশ এর উপর নির্ভরশীলতা অনেক কমে যাবে।তাছাড়া সকল সময় রাস্তার যানজট পরিস্থিতি ও নিয়ন্ত্রণ করা অনেক সহজ হবে।

                                           সিলেটের বিভিন্ন পয়েন্টে অবৈধ স্ট্যান্ড এর চিত্র

সিগন্যাল লাইট না থাকার কারণে যানবাহনের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করা কষ্টকর এবং অনেকাংশ ট্রাফিক পুলিশের নিয়ন্ত্রণের বাইরে।তাই প্রতিনিয়ত আমাদের রাস্তার পর্যাপ্ত ব্যবহারে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। ঠিক একই ভাবে অব্যবস্থাপনার অভাবে প্রতিটি রাস্তার মুড়ে রয়েছে অবৈধ সি এন জি স্ট্যান্ড ও গাড়ির স্ট্যান্ড।এই সব অবৈধ স্ট্যান্ড এর কারণে রাস্তা গুলো আরও সরু হয়ে পড়েছে।প্রশাসন এই সকল অবৈধ স্ট্যান্ড নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হচ্ছেন।নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট,গলির মুখে গড়ে উঠেছে অবৈধ স্টান্ড।নগরীর কোর্ট পয়েন্ট,টিলাগড় পয়েন্ট, আম্বরখানা পয়েন্ট এর অবস্থা খুবই করুনশত শত সি এন জি, লেগুনা রাস্তার একাংশ ব্লক করে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

গুরুত্বপূর্ণ দুই মাজার এর গেট এ লাইন ধরে সি এন জি দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।সিলেট একটি পর্যটন নগরী।হজরত শাহজালাল (রা:) আর হজরত শাহ্পরানের মাজার জিয়ারত করতে প্রায় প্রতি সপ্তাহে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের আগমন হয় এই পবিত্র নগরীতে।যত্রতত্র স্ট্যান্ড গড়ে উঠার কারণে রাস্তা গুলোতে পর্যাপ্ত জায়গা না থাকার কারণে যাত্রীবাহী বাসের রাস্তা দিয়ে প্রবেশ করা অনেক কঠিন।পর্যাপ্ত পরিমাণ রাস্তা না থাকায় একটি বাসের কারণেই যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে পুরো নগর জুড়ে প্রতিটি পয়েন্টে।

আমাদের বর্তমান মেয়র এর চলমান রাস্তা প্রসস্থ করণের কাজ প্রশংসনীয়।হকার উচ্ছেদ,জলাবদ্ধতা দূরীকরণে খাল পরিষ্কার,অবৈধ ভাবে দখল হওয়া সরকারি জমি উদ্ধারে আমাদের সিটি মেয়র আরিফুল হক এর কাজ সবার নজর কেড়েছে।আমরা সবাই আশাবাদী তিনি আমাদের প্রানপ্রিয় সিলেট নগরীর প্রতিটি রাস্তা প্রশস্থ করবেন এবং সকল অবৈধ স্ট্যান্ড নিয়ন্ত্রণে কঠোর হবেন।

**জনস্বার্থে সিলেট আজকাল এর বিশেষ প্রতিবেদন।আপনার এলাকার যেকোনো সমস্যা আমাদের লিখে পাঠান আমরা আপনার প্রতিবেদন জনসম্মুখে নিয়ে আসবো।**