শনিবার, ২০ জানুয়ারী, ২০১৮

ইব্রাহীমপুর-সৈয়দপুর রাস্তায় ঢালাই খসে রড বেরিয়েছে

ষ্টাফ রিপোর্ট:সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের ইব্রাহীমপুর-সৈয়দপুর প্রায় ১ কিলোমিটার সড়কে ৫৪ স্থানে ঢালাই ভেঙে রড বেড়িয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন যাবত এমন অবস্থায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন পথচারীরা। এই সড়কের সর্বশেষ সংস্কার হয়েছিল ২০০৯ সালে। বিগত ৮ বছরের মধ্যে কোনো সংস্কার কাজ হয়নি সড়কে। 

বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রতিদিন ইব্রাহীমপুর থেকে ডলুরা ও চৌমুহনী এলাকাসহ সুরমা ও জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের ১৩টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ এ সড়ক দিয়ে শহরে আসা-যাওয়া করে থাকেন। সরকারি বেসরকারি চাকুরিজীবী, শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কৃষিজীবীসহ নানা শ্রেণীপেশার লোকজন এ সড়কে শহরে আসা যাওয়া করেন। কেউ মোটর সাইকেলে, কেউ বাইসাইকেলে, আবার কেউ কেউ হেঁটে যাতায়াত করেন এ সড়কে। প্রতিদিন বিভিন্ন বয়সের নারী ও পুরুষ রোগীরা শহরের হাসপাতালে আসেন। এ সড়ক এলাকার মানুষের শহরে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম। 

ইব্রাহীমপুর থেকে মুসলিমপুরের ব্রীজ পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার সড়কে ভাঙাচুরার পাশাপাশি ৫৪ স্থানে রড বেড়িয়ে গর্ত হয়ে পড়েছে। রডগুলোএলোপাতাড়ি হয়ে বিপদজনকভাবে পড়ে আছে। এ কারণে প্রতিদিনই একাধিক ছোটখাটো ঘটনা ঘটে চলেছে। সামান্য অসর্তকতায় ঘটে যেতে পারে বড় রকমের দুর্ঘটনা। 
সৈয়দপুর গ্রামের আয়ুব আলী বলেন, ‘আমরা প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে শহরে আসা-যাওয়া করি। যাতায়াতে আমরা মারাত্মক ভোগান্তির শিকার হচ্ছি।’
মুসলিমপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘প্রতিদিন এ সড়কে যাতায়াতের সময় রোগী ও শিক্ষার্থীরা মারাত্মক সমস্যার সম্মুখিন হচ্ছেন।’

অক্ষয়নগর গ্রামের আব্দুর রহীম ও ইব্রাহীমপুর গ্রামের আমির হোসেন বলেন, ‘হাজার হাজার মানুষের এ যোগাযোগ সড়ক এখন খুবই অবহেলিত। দীর্ঘদিন ধরে এ সড়কের সংস্কার কাজ হয়নি। প্রতিদিন মানুষ ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। এখন পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সংস্কারের কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেয়নি।