মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৭

পূর্ণিমা ও স্বপন আহমেদ আদম চক্র নিয়ে ইউরোপে প্রবেশ করার পায়তারা

ফরিদ আহমেদ(ইউরোপ):অনেকেই জানেন আবার সিনেমায় ফিরছেন নায়িকা পূর্ণিমা! কিন্তু গোপন সূত্রে জানা যায়, পূর্ণিমা ও ডিরেক্টর স্বপন আহমেদ আদম চক্র নিয়ে ইউরোপে প্রবেশ করার পায়তারা চলছে। গত অক্টোবর থেকেই ফ্রান্স, সুজারল্যান্ট শুটিং শুরু হওয়ার কথা থাকলেও, এখন পর্যন্ত কেউ যেতে পারেন নাই। ভিসা জটিলতায় চলচ্চিত্রটি থেকে বাদ পড়তে হয়েছে অনেকে। মানব পাচারের গন্ধ পাওয়া গেছে এই টিমের ভিতর টাকা ভাগা-বাগি নিয়ে।

প্রথম আলো, বাংলা নিউজ২৪ ডট কম- থেকে শুরু করে বাংলাদেশের অনেক জনকপ্রিয় অনলাইন পত্রিকাই আসে। এর ফাঁকে বাংলাদেশে ফ্রান্স দূতাবাস জেনে পেলে, নায়িকা পূর্ণিমার সাথে ৩ জন মানব পাচার হবে।


বাংলাদেশ ফ্রান্স দূতাবাস ভিসা দিতে অপারগতা জানাই। আগামী ৭ই জানুয়ারী স্বপন আহমেদ (আদম পাচারকারী) বাংলাদেশে যাচ্ছেন, কিভাবে অতিদূরত ইউরোপে আদম আনা যাই।

দেশ উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে বলে সরকার প্রচারণা চালাচ্ছে। তাই মানব পাচারের বিষয়টি তাদের জন্য বিব্রতকর বলে বিষয়টি তারা এড়িয়ে যেতে চাইছে। কেবল কয়েকজন পাচারকারীকে ধরে তাদের নাম প্রকাশ করলেই হবে না। খুঁজে বের করতে হবে এর পেছনে থাকা রাঘব-বোয়ালদেরও। কারণ তাদের সহযোগিতা ছাড়া এতো সহজে মানবপাচার সম্ভব নয়।’ তাদের ভিতর অন্নতম স্বপন আহমেদ ইউরোপের মানব পাচারের দালাল হিসাবে কাজ করে।

বাংলাদেশে মানব পাচার পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে। পাচার প্রতিরোধে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থতার কারণে পরিস্থিতি আগের চেয়েও খারাপ হয়েছে, মানব পাচার প্রতিরোধে সরকার ন্যূনতম মানও বজায় না রাখায় বাংলাদেশ ‘টায়ার-২’ থেকে এক ধাপ নেমে ‘টায়ার-২ ওয়াচ লিস্ট’ বা দ্বিতীয় স্তরের নজরদারিতে থাকা দেশের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে বলে জানানো হয়েছে ইউরোপ ইউনিয়ানের প্রতিবেদনে।

ইউরোপে মানব পাচার-সংক্রান্ত মামলা ও সাজা বৃদ্ধি, বিশেষ করে শ্রম পাচারকারী ও ভুয়া প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া এবং পাচারের শিকার ব্যক্তিদের যথাযথ খেয়াল রাখার বিষয়ে একটি গাইডলাইন তৈরির প্রদিপক্ষেপ নিয়েছেন। মানব পাচারে জড়িত বাংলাদেশী সাংবাদিক, মিডিয়া কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা যাচাই করে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

অতীতও জলবায়ু সম্মিলন, কান ফ্লিম ফেস্টিভেলের নামে ইউরোপে অনেক সাংবাদিক ও মিডিয়া কর্মী কাগজ বিহীন ফ্রান্সে বসবাস করছেন।

২০১৩ সালে  ২৮ নভেম্বর মন্ত্রিসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যানুয়েল ভালস বহু আকাঙ্খিত এ প্রজ্ঞাপনটি উপস্থাপন করেন। এ প্রজ্ঞাপনের ফলে মন্ত্রিসভা অবৈধ ভাবে ফ্রান্সে বসবাসকারীদের বিধিসম্মতভাবে বৈধ করার প্রক্রিয়া চালুর বিষয়ে একমত হন।

এদিকে এ ধরনের প্রজ্ঞাপনকে সমাজবাদী সরকারের দ্বৈতনীতির বহি:প্রকাশ বলে জানিয়েছেন বিরোধী শিবির ইউএমপি’র বিতর্কিত সভাপতি জ্যঁ ফ্রসোয়া কুপে। দীর্ঘদিন ধরে ফ্রান্সে অবৈধভাবে বসবাসকারীদের অভিবাসন সুবিধার আওতার আনার জন্য বর্তমান সমাজবাদী সরকারের জারি করা ঐ সময় এ প্রজ্ঞাপনটি অস্পষ্ট বলে মনে করেন তিনি।

২০১৭ সাল শেষ  ফ্রান্সে এখন পর্যন্ত বসবাসকারী অবৈধ অভিবাসীদের ঠিক কতো সংখ্যক বৈধতা পাবে এ বিষয়ে কোন সুস্পষ্টতা না।

 দলীয় বা রাজনৈতিক বিবেচনা না করে মানব পাচারকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে এবং শ্রম গ্রহণকারী দেশগুলোর সঙ্গে কূটনৈতিক তৎপরতার পাশাপাশি জনসচেতনতা বাড়াতে হবে।

এ ছাড়া প্রতিবেদনে অন্যান্য সুপারিশের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ ও বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে মানব পাচারের ঘটনাগুলো চিহ্নিত করাও হচ্ছে।

উল্লেখ্য, নায়িকা পূর্ণিমা ছাড়াও অন্য চরিত্রে অভিনয়ের কথা রয়েছে, সংগীত পরিচালনা করছেন ইবরার টিপু। সিনেমাটিতে আরও অভিনয় করবেন ফারুক আহমেদ, শিমুল খান, শিপন মিত্র ও তানজিন তিশা, সাথে থাকছে কয়েকজন আদম।