রবিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৭

ব্যবসায়ী সমিতির অফিসে হামলা-লুটপাট

স্টাফ রিপোর্ট:চাঁদা না পেয়ে ব্যবসায়ী সমিতির অফিসে হামলা,ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় মামলা হলেও অজ্ঞাতকারণে ‘চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী’দের গ্রেফতার করছে না পুলিশ। ফলে এলাকার ব্যবসায়ী সহ জনমনে চরম আতংক বিরাজ করছে।
এলাকার ব্যবসায়ী ও সাধারণ জনতা অবিলম্বে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। গত ২৭ নভেম্বর নগরীর কুয়ারপারস্থ আলপনা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।
অভিযোগে প্রকাশ, নগরীর কুয়ারপারস্থ আলপনা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি সদস্যদের কাছে এলাকার একদল চিহ্নিত চাঁদাবাজ দীর্ঘদিন ধরে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিল। চাঁদা দাবির বিষয়ে স্থানীয়ভাবে বিচারপ্রার্থী হলে তারা সমিতির সদস্যদের উপর ক্ষুব্দ হয়ে ওঠে। 

গত ২৭নভেম্বর বিকেল সাড়ে ৪টায় ১৫/২০ জনের একদল সন্ত্রাসী সমিতির কার্যালয়ে অকস্মাৎ হামলা চালায়। এসময় তারা সমিতির কার্যালয়ে ভাংচুর করে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে এবং সমিতির সদস্য ও কর্তাব্যক্তিদের মারপিট করে।
হামলাকারীরা অস্ত্রের মূখে সমিতি সদস্যদের জিম্মি করে কার্যালয় থেকে নগদ প্রায় ২লাখ টাকা লুটে নেয় এবং প্রানাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়। এ ঘটনায় আলপনা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সদস্য শেখ শামীম আহমদ বাদী হয়ে শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) রাতে ৩ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক ২০জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা {নং-০১(১২)১৭} দায়ের করেন। মামলার এজাহারভুক্তরা হচ্ছে, সিলেট নগরীর ৬৬ কুয়ারপারের নাজমুল ইসলাম নাজুর পুত্র মহি ইদ্দিন খান রাসেল, একই বাসার জহির উদ্দিনের পুত্র নাসির আহমদ খান ও জমির উদ্দিন খান।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই মো. ইবাদুল্লাহ জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরির্শন করেছে। আসামীরা আত্মগোপনে থাকায় তাদের গ্রেফতারে তল্লাশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।