বৃহস্পতিবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৭

উপমহাদেশে ক্রিকেটের যাত্রা হয়েছিল এই সিলেটে

স্পোর্টস ডেস্ক:বিপিএল ঘিরে সিলেটের মানুষের উন্মাদনার শেষ নেই। ক্রিকেট নিয়ে তাদের ভালবাসার কারণটাও গভীর। কারণ ক্রিকেটের সঙ্গে তাদের দেড়শ বছরের বন্ধন। উপমহাদেশের প্রথম রেকর্ডকৃত ক্রিকেট ম্যাচ হয়েছিল এই সিলেটে। ১৮৫৬ সালে স্টেশনের প্যারেড গ্রাউন্ডে!
এমনই তথ্য নথি হয়ে আছে স্পোর্টস কালচার এন্ড নেশনে প্রকাশিত একটি সাময়িকীতে। যেটি সংগ্রহে রেখেছে সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা।
ওই ম্যাচের পর ধীরে ধীরে এ বাংলায় ছড়ায় ক্রিকেট। দুই বছর পরই ঢাকায় ক্রিকেট চর্চা শুরু হয়। ১৮৭৬ সালে ঢাকার ওল্ড লাইনে (পুরানা পল্টন) ব্রিটিশ ও স্থানীয়দের মাঝে ম্যাচ হয়। ইউরোপিয়ান অফিসার ও সৈনিকদের নিয়ে গড়া হয় দলটি। স্থানীয় দলটি স্থানীয়দের নিয়েই করা হয়।

ইংরেজরা সহজেই জিতে নেয় ম্যাচ। ওই সময়ে প্রকাশিত সাময়িকী বেঙ্গলি টাইমসের একটি লেখায় বলা হয় ইংরেজরা বেশ সিরিয়াস হয়ে খেলে তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেছেন। ম্যাচের টেকনিক্যাল ব্যাপারগুলোও তুলে ধরায় হয় ওই লেখায়। ইংরেজদের হয়ে সর্বোচ্চ রান করা মিস্টার লয়েল আনাড়ি ব্যাটসম্যানের মতো আউট হওয়ার ঘটনা গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশ করা হয়।
এরপর ১৮৮০ সালের শুরুতে ক্রিকেটে আগ্রহী হয় উপমহাদেশের প্রথম আধুনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত ঢাকা কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। তারা ক্লাব গঠন করে ক্রিকেট চর্চার জন্য। কলেজটির ইংরেজ শিক্ষকরা ক্রিকেট খেলা ছড়িয়ে দিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। বাংলার বিভিন্ন স্থানে তারা অনুশীলন ম্যাচ খেলেন। ১৮৮৩ সালে পশ্চিমবাংলার কৃঞ্চনগর কলেজ টিমকে তারা হারায়। উনিশ শতকের শুরুর দিকে কুচবিহার টিম ক্রিকেট খেলায় খ্যাতি অর্জন করে। এভাবেই আগাতে থাকে বাংলার ক্রিকেট। যার সূত্রপাত সিলেট থেকে।