রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৭

আম্বরখানায় ছাত্রলীগের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, আহত ১০

স্টাফ রিপোর্ট:নগরীর আম্বরখানা পয়েন্টে চাঁদার দাবিতে একদল যুবক সিএনজি চালিত অটোরিকশাচালকদের ওপর হামলা চালিয়েছেন। এ সময় দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।
পরিবহন শ্রমিকরা জানিয়েছেন, হামলাকারীরা ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় আম্বরখানা পয়েন্টে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে অটোরিকশাচালকসহ ১০ জন আহত হয়েছেন।আহত ১০ জনের মধ্যে গুরুতর আহত হয়েছেন ছয়জন। তারা হলেন- সৈয়দ গোলাম রহমান, সৈয়দ ফরহাদ, ফজল আহমদ রাসেল, রাশেদ আহমদ, সাকিল আহমদ। এদের সবাই পরিবহন শ্রমিক। তাদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শ্রমিকরা জানান, সম্রাট, শাকিল, রকি, সুমন, দিপু, অয়ন ও রকিব নামের ছাত্রলীগ কর্মীরা কিছু দিন থেকে আম্বরখানাস্থ সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালকদের প্রায়ই হুমকি দিয়ে আসছেন। তাদের বলা হয়েছে, আম্বরখানা পয়েন্ট এলাকায় গাড়ি রাখলে চাঁদা দিতে হবে। এ নিয়ে গতকাল উভয়পক্ষের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। একপর্যায়ে সম্রাট ও তার সহযোগীরা শ্রমিকদের ওপর হামলা চালান।
হামলার সময় তারা আম্বরখানা স্ট্যান্ডের চেয়ারম্যান শ্রমিকনেতা আব্দুর রহমানকেও মারধর করা হয়। তারা তাকে প্রকাশ্যে স্টিলের পাইপ ও রড দিয়ে পিটিয়ে জখম করেন। পরে অন্য চালকরা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা দর্শন দেউড়ির দিকে পালিয়ে যান। হামলাকারীরা মঈনুল গ্রুপের কর্মী বলেও শ্রমিকরা জানিয়েছেন।
আহত শ্রমিকনেতা আব্দুর রহমান জানান, হামলাকারীদের তিনি চিনতে পারেননি। তারা ময়নূল নামে এক নেতার পরিচয় দিয়ে হামলা চালিয়েছেন। এর আগে কয়েকদিন ধরে তারা ১৫ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। টাকা না দেয়ায় এ হামলা চালানো হয়।
মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌছুল হোসেন বলেন, আমরা ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছি। এ ঘটনায় এখনো কোনো অভিযোগ দেয়া হয়নি।