মঙ্গলবার, ১ আগস্ট, ২০১৭

বিয়ানীবাজারে ব্যাংক কর্মকর্তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার


স্টাফ রিপোর্টঃ বিয়ানীবাজারে সজল কান্তি দাস (৪৫) নামে এক ব্যাংক কর্মকর্তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার রাত ৮টায় লাশটি উদ্ধার হয়। তবে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ উদ্ধার হলেও ঘটনাটি হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে সন্দিহান পুলিশ। নিহত সজল বিয়ানীবাজারস্থ যমুনা ব্যাংকের ম্যানেজার ছিলেন। তিনি পৌর সদরের দক্ষিণ বাজারস্থ সিটি ট্যাংকার ভবনের তৃতীয় তলার একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন। বিয়ানীবাজার থানার ওসি চন্দন চক্রবর্তী  বলেন, লাশ উদ্ধারের পর কিছু বিষয়ে অনুসন্ধান চলছে। মৃত্যুর ঘটনার আড়ালে কোনো রহস্য আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সজলের সহকর্মী ও বিয়ানীবাজার যমুনা ব্যাংকের সহকারী ম্যানেজার শাহেদ আহমদ জানান, কয়েকদিন ধরে ঋণ সংক্রান্ত বিষয়ে ব্যাংকে খুব ঝামেলা হচ্ছে। এছাড়া ব্যাংকে আর কোনো সমস্যা ছিল না।


সহকর্মীরা জানান, সোমবার বিকালে ব্যাংক থেকে বাসায় যাওয়ার পর আর ব্যাংকে ফিরে যাননি। বার বার কল করেও ফোন না ধরায় ব্যাংকের একজন কর্মচারীকে ম্যানেজারের বাসায় পাঠানো হয়।

ওই কর্মচারী বাসার দরজা ভেতর থেকে আটকানো দেখে ডাকাডাকির পরও সাড়া না পাওয়ায় বিষয়টি ব্যাংকের অন্যান্য স্টাফদের জানান। বিষয়টি বিয়ানীবাজার থানা পুলিশকে জানানো হলে তারা ব্যাংক মানেজার সজলের বাসায় যায়।

পুলিশ বাসার দরজা ভেঙে পুলিশ ভেতরে ঢুকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ দেখতে পায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করলেও আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারেনি।

নিহত সজল কান্তির পরিবার ও সন্তানরা সিলেট নগরীতে থাকে বলে জানা গেছে। তার বাবার নাম যুগাঙ্গ চন্দ্র দাশ ও মায়ের নাম ছায়া রাণী।