শনিবার, ২৪ জুন, ২০১৭

আল বিদা মাহে রমজান:উত্তম চরিত্র

হযরত আবু হুরায়রা রাঃ থেকে বর্ণিত মুসলিম শরীফের হাদীস। রিয়াদুস সালেহীনে এটি এসেছে ১৫৭৪ নম্বরে। বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (সা:) বলেছেন, ‘কোনো ব্যক্তির খারাপ হবার জন্য এটাই যতেষ্ট যে সে তার মুসলিম ভাইকে অবজ্ঞার চোখে দেখে’। কেই যদি কাউকে সমাজের চোখে ছোট করবার জন্য পিছু লাগে বা মনে মনে নিজে বড়ো আর তার অপর ভাইকে ছোট বা নীচু লোক মনে করে তো নবী সাঃ কথা অনুযায়ী সে খারাপ মানুষ। আমাদের  নবী হজরত মুহাম্মদ (সাঃ)এর সময় মুসলমানদের পারস্পরিক সম্পর্ক ছিলো সুন্দর ভ্রাতৃত্বপূর্ণ। নবী (সাঃ) পরে সাহাবাদের যুগেও মুসলমানদের সর্ম্পক, চালচলন ছিলো নবীর (সাঃ) যুগের মতো।ইসলাম সবসময় মুসলমানদের একজনের সাথে আরেকজনে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ ব্যবহারের প্রতি উৎসাহিত করেছে। একজন মুসলমান আরেকজন মুসলমানের সাথে সুন্দরভাবে কথা বলবে,


একজন ভালো মুসলমানদের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে:একজন আরেকজনকে খারাপ চোখে দেখবে না, খারাপ কথা বলবে না। ঝগড়ার মতো পরিস্থিতি তৈরী হলে এড়িয়ে যাবার চেষ্টা করবে। মুসলমান হবে সমাজের সবচেয়ে ভালো মানুষ। রিয়াদুস সালেহীনে ১৫৬৫ নম্বরে একটি সুন্দর হাদীস এসেছে। হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আস রাঃ থেকে বর্ণিত। নবী সাঃ বলেছেন, সেই প্রকৃত মুসলমান যার জিহবা (অর্থাৎ মুখের খারাপ ভাষা, গালাগালি) এবং হাতের অনিষ্ট থেকে অপর মুসলমান নিরাপদ থাকে। মুসলমান মুসলমানকে বিশ্বাস করবে, একজন আরেকজনকে ভালোবাসবে, কেউ কাউকে ছোট করবে না। এটাই তাদের চরিত্র।