রবিবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০১৭

বিশিষ্ট সমাজসেবক ইংল্যান্ড প্রবাসী মিসবা উল মাসুম


বিশিষ্ট সমাজসেবক ইংল্যান্ড প্রবাসী মিসবা উল মাসুম আমাদের সিলেটের গুলাপগঞ্জ উপজেলার বাঘা উনিয়নের এক কৃতি সন্তান.মিসবা উল মাসুম প্রবাসী জীবনের শত ব্যস্ততার মধ্যে তিনি বিভিন্ন সামাজিক সংঘটন বিশেষ করে নিজ উপজেলা এবং নিজ গ্রামের উন্নয়নের জন্য উনি কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন.তিনি প্রবাসীদের নিয়ে গঠিত বিভিন্ন সংগঠনের জন্য বিদেশ এ চাঁদা/ভাতা তুলেন.সংগঠনের মাধ্যমে নিজ দেশে তা প্রেরণ করেন এবং গরিব ও প্রান্তিক কৃষক ভাইদের চিকিৎসা ও বাসস্থান নির্মাণ করে দেন.উনি এখন বাংলাদেশে আছেন নিজ গ্রামের বাড়ি বাঘায়.আজ আমাদের সিলেট আজকাল এর সম্পাদক উনার প্রবাস জীবন এবং ইংল্যান্ডের বিভিন্ন সংঘটনের কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে চান উনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়েও কথা হয়.চলুন জেনে নেই মিসবা মাসুম এর মুখে উনার প্রবাস জীবন যাপন নিয়ে।

শিক্ষা জীবন:বাঘা ১ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আমার প্রাথমিক শিক্ষা সম্পন্ন করি এবং হাজি আব্দুল আহাদ উচ্ছ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকালীন ছাত্র হিসেবে আমি ৬ষষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি হই.১৯৯৪ সালে এম সি একাডেমী হইতে আমি এস এস সি পাশ করি এবং সিলেট সরকারি কলেজ হইতে এইচ এস সি পাশ করি.এম সি কলেজ হইতে স্নাতক সম্মান অর্জন করি।

 

প্রবাস জীবন: আমি এল এল বি শিক্ষার্থী থাকাকালীন সময়ে ২০০৮ সালে আমি স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে ইংল্যান্ড এ যাই.ইংল্যান্ড এর গিল্ড হল কলেজ থেকে আমি এইচ ন ডি ব‌িজনেস ডিপ্লোমা সম্পন্ন করি।

পেশাজীবন:বর্তমানে আমি “PIMLICO”একাডেমীতে “ILLOVAT”সার্ভিস লি: এ এসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার হিসেবে নিয়োজিত আছি.এই প্রতিষ্টান শিশু নির্যাতন যেমন:বাবা মা হইতে সন্তান নির্যাতন ও সামাজিক লঙ্ঘন এবং নিপীড়িতদের পুনরবাসন‌ে স‌হোয‌গিতা প্রদান করে থাকে।

ইউ কে তে প্রবাসীদের কয়েকটি সংঘটনের নাম:আমাদের প্রবাসী ভাইয়েরা দেশ ও দেশের কল্যাণের জন্য সব সময় নিয়োজিত আছেন.তাদের কষ্টের উপার্জন থেকে উনারা বিভিন্ন সংঘটনে টাকা পয়সা দান করেন.আমার দেখা মতে কয়েকটি কার্যকরী সংঘটনের নাম; এডুকেশন ট্রাস্ট গুলাপগঞ্জ, গুলাপগঞ্জ হেল্পিং হ্যান্ডস,বাঘা ইউনিয়ন ডেভলাপমেন্ট এসোসিয়েশন,ঢাকা দক্ষিণ উন্নয়ন সংস্থা,বাঘির ঘাট ভিলেজ ট্রাস্ট,দপ্তরাইল উন্নয়ন সংস্থা,ফুলসাইন ভিলেজে ট্রাস্ট এবং গুলাপগঞ্জ পৌরকল্লান উল্লেখযোগ্য. এই সকল সংঘটন গু‌লো দ‌ে‌শের জনগ‌নের মান‌বিক সেবায় নি‌য়ো‌জিত র‌য়ে‌ছে।

গুলাপগঞ্জ হেল্পিং হ্যান্ডস:গুলাপগঞ্জ উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন এর গরিব দুস্থ ও প্রান্তিক কৃষক ভাইদের মধ্যে একটি করে ঘর নির্মাণ করে দেওয়া.ইতিমধ্যে প্রায় এক লক্ষ চল্লিশ হাজার টাকা ২জন দুস্থ রুগীর চিকিৎসার জন্য দান করা হয়েছে।

গুলাপগঞ্জ হেল্পিং হ্যান্ডস এর কার্যনির্বাহী পরিষদের পরিচয়:সভাপতি হিসেবে তমিজুর রহমান রঞ্জু,সেক্রেটারি হিসেবে লিটন এবং কুষাদক্ষ হিসেবে জিয়া উল হক শামীম নিয়োজিত রয়েছেন.আমি উক্ত সংগঠনের একজন দাতা সদস্য।


বাঘা ইউনিয়ন ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন:আমি প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং বর্তমানে কমিটির যুগ্ন সম্পাদক হিসেবে নিয়োজিত আছি.আমাদের সংঘটনের মূল উদ্দেশ্য এলাকার শিক্ষার ম্যান উন্নয়ন ও দারিদ্রতা বিমোচন.আমরা ইতিমধ্যে সংঘটনের পক্ষ হইতে গরিব ও দুস্থ ভাইদের মেয়েদের বিবাহ খরচ বাবত প্রায় ৬লক্ষ টাকা প্রদান করেছি.আমাদের বাঘা ইউনিয়ন ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন এর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ২০১৮ সাল আমাদের বাঘা ইউনিয়ন এ অসহায় মানুষদের জন্য প্রতিবৎসর চারটি করে ঘর নির্মাণ করে দেওয়া.তাছাড়াও আমাদের সংগঠন বিনা সুদে গরিব দুস্থ ভাইদের ঋণ বিতরণ করে থাকে।