বুধবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০১৭

টিপিপিতে যুক্তরাষ্ট্র না থাকলে বাংলাদেশেরই লাভ' - বলছেন তৈরি পোশাক ব্যবসায়ী


আজকাল বাণিজ্য ডেস্ক:প্রেসিডেন্টের নির্বাহী আদেশে ট্রান্স-প্যাসিফিক পার্টনারশিপ বা টিপিপি থেকে যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে আসার পর একে স্বাগত জানাচ্ছেন বাংলাদেশের তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকেরা।
 
টিপিপি বাস্তবায়িত হলে মার্কিন বাজারে পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ প্রতিযোগীতায় পিছিয়ে পড়বে বলে একটি শঙ্কা তৈরি হয়েছিল।

  
প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ১২ টি দেশের মধ্যে মুক্ত বাণিজ্য স্থাপনের উদ্দেশ্যে স্বাক্ষরিত হয়েছিল টিপিপি। শুল্কমুক্ত সুবিধার পাশাপাশি এই দেশগুলোর মধ্যে ঘনিষ্ঠ বাণিজ্যিক সম্পর্ক, এমনকি আইনকানুন তৈরির ক্ষেত্রেও একটি একক নীতি নেয়ার মত জটিল বিষয় এসেছে এই টিপিপি-তে।
যদিও এই চুক্তিতে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ভয় ছিল দেশটির তৈরি পোশাক খাতের ভবিষ্যৎ নিয়ে, বিশেষ করে ভিয়েতনামকে নিয়ে।
 
"অধিকাংশ এলডিসি দেশ যুক্তরাষ্ট্রে শুল্কমুক্ত সুবিধা পাচ্ছে, কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে বাংলাদেশ সেটা পাচ্ছে না। এখন টিপিপি না হওয়াতে বাংলাদেশকে যতটা শুল্ক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ঢুকতে হয়, ভিয়েতনামকেও তাই দিতে হবে। ফলে আমরা প্রতিযোগিতার দিক দিয়ে একই জায়গায় থাকলাম"- বলেন বাংলাদেশে গার্মেন্ট মালিকদের সংগঠন, বিজিএমইএ-র ভাইস প্রেসিডেন্ট ফারুক হাসান।

তৈরি পোশাক রপ্তানির দিক দিয়ে সারাবিশ্বে চীনের পরেই বাংলাদেশ দ্বিতীয় অবস্থানে থাকলেও যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ভিয়েতনাম বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। সেখানে টিপিপি বাস্তবায়িত হলে বাংলাদেশ প্রতিযোগীতায় আর টিকতে পারবে না বলেই আশঙ্কা ছিল ব্যবসায়ীদের।

সূত্র:বিবিসিবাংলা