মঙ্গলবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০১৭

২০১৭ সালে হজে গমনেচ্ছুদের অনলাইনে প্রাকনিবন্ধন শুরু

আজকাল রিপোর্ট:সরকারি ব্যবস্থাপনায় ২০১৭ সালে হজে গমনেচ্ছুদের অনলাইনে প্রাকনিবন্ধন শুরু হয়েছে। রবিবার বিকেলে সচিবালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মো. মতিউর রহমান। এ সময় ধর্ম সচিব আব্দুল জলিলসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।তবে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজের প্রাকনিবন্ধন শুরু হলেও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় নিবন্ধন শুরু হবে ফেব্রুয়ারি মাসে। তারিখ এখনও চূড়ান্ত হয়নি।




অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বলেন, গত বছর থেকে ইলেকট্রনিক হজ ব্যবস্থাপনা চালু হয়েছে। এবারও তা চলবে। প্রাকনিবন্ধন কার্যক্রম শুরুর জন্য আমরা ইতিমধ্যেই ৯৬৪টি বৈধ হজ এজেন্সির তালিকা এবং টাকা জমা দেয়ার জন্য ২৫টি ব্যাংকের তালিকা প্রকাশ করেছি। গত বছর এক লাখ ৪০ হাজার ৯৯৪ জন হজে যাওয়ার জন্য প্রাকনিবন্ধন করেছিলেন। যার মধ্যে এক লাখ এক হাজার ৮২৯ জন হজযাত্রী হজে গিয়েছিলেন। গতবার যারা যেতে পারেননি তারা ২০১৭ সালের জন্য নিবন্ধন করেছেন।

তিনি আরও বলেন, এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের প্রাকনিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হবে ৫৪০২ নম্বর সিরিয়াল থেকে। আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের প্রাকনিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হবে এক লাখ ৪০ হাজার ৯৯৫ নম্বর সিরিয়াল থেকে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিল্প মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মোস্তফা কামাল এবং তার স্ত্রী মিসেস কামাল নিবন্ধন ও প্রাকনিবন্ধন করে ধর্মমন্ত্রীর কাছ থেকে সনদ গ্রহণ করেন।

ধর্ম সচিব মো. আব্দুল জলিল বলেন, সৌদি সরকার একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, এতদিন মোট মুসলিম জনসংখ্যার ভিত্তিতে কোটার যে ২০ শতাংশ বন্ধ ছিল, তা এবার ওপেন হয়ে যাবে। যদি এটা বাস্তবায়িত হয় তাহলে এবার এক লাখ ২৫ হাজারের বেশি বাংলাদেশি হজে যেতে পারবে।

গত কয়েক বছর যাবত হারাম শরীফের সংস্কারের জন্য বিভিন্ন দেশের হজযাত্রী কোটা ২০ শতাংশ কমিয়েছিল সৌদি সরকার। কোটার ২০ শতাংশ কম থাকায় বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ এক হাজার ৭৫৮ জন হজে যেতে পারতেন।
ধর্ম সচিব আরও জানান, গত বছর হজে অনিয়মের দায়ে যে সকল এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল তাদের বিরুদ্ধে শিগগিরই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা চূড়ান্ত করা হবে। এই অনুষ্ঠানে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।