সোমবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

আমাদের শ্রীমঙ্গল


আজকাল ভ্রমন গাইড:শ্রীমঙ্গল ভ্রমণ পিপাসু প্রকৃতি প্রেমীদের জন্য অন্যতম আকর্ষণীয় অঞ্চল। পর্যটককে কেন্দ্র করে শ্রীমঙ্গলে প্রতিনিয়ত গড়ে উঠেছে নিত্য নতুন রিসোর্ট, পাঁচতারকা গ্রাণ্ড সুলতান রিসোর্ট অন্যতম।গ্রান্ড সুলতানের অভ্যন্তরের জাকজমক আপনাকে দুবাই নিয়ে যেতে পারে

শ্রীমঙ্গলের রাধানগরে রাস্তার দু-পাশে হরেক রকমের রিসোর্ট গেস্ট হাউজ দেখা যায়। নিস্বর্গ ইকো রিসোর্ট, হারমিটেজ, আমাজন, হিমাচল ও নভেম তার মধ্যে অন্যতম।
 

তাছাড়া রয়েছে লেমন গার্ডেন,রেইন ফরেস্ট ও আরও ছোট বড় অনেক রিসোর্ট শ্রীমঙ্গলে বিস্তৃত হয়ে আছে।অগ্রিম বুকিং পরিশোধ না করলে কামরা পাওয়া কষ্টকর।প্রকৃতির সবুজ সমারোহে কয়েকটি গেস্ট হাউজ রিসোর্ট গড়ে উঠেছে।

অনলাইন মাধ্যাম ফেইসবুকে রিভিউ দেখে আপনার পছন্দের রিসোর্ট বাছাই করে নিতে পারেন। পরিবার আত্বিয়স্বজন কিংবা বন্ধুবান্ধব নিয়ে ভ্রমণ করার একটি উপযুক্ত অঞ্চল শ্রীমঙ্গল। 


শ্রীমঙ্গলকে বাংলাদেশের চায়ের  রাজধানী বলা হয়। তাই আপনি যখন শ্রীমঙ্গল ভ্রমণ করবেন ছোট বড় অনেক চা বাগান দেখতে পাবেন। তাছাড়া শ্রীমঙ্গলে রয়েছে বাংলাদেশের একমাত্র চা গবেষণা কেন্দ্র, যার মনোরম পরিবেশ আপনাকে সহজেই মুগ্ধ করবে। 


শ্রীমঙ্গলে খাবার এর জন্য ভালমানের কিছু রেস্টুরেন্ট রয়েছে তারমধ্যে শশুরবাড়ী, কুটুমবাড়ী, ও সাত রঙের চা রেস্টুরেন্ট অন্যতম।


ছুটি কাটানোর জন্য শ্রীমঙ্গল হতে পারে আপনার অন্যতম গন্তব্যস্থল।আপনি শ্রীমঙ্গল ভ্রমণ না করলে ছুটির সময় শ্রীমঙ্গল ঘুরে আসতে পারেন।


শ্রীমঙ্গলে রয়েছে বাংলাদেশের একমাত্র বন্য প্রাণী সংরক্ষণ কেন্দ্র।এই কেন্দ্রের উদ্যোক্তা ও সংগঠক সীতেশ বাবু, এই বন্য প্রাণী সংরক্ষণ কেন্দ্র স্থানীয়দের কাছে সীতেশ বাবুর চিড়িয়াখানা নামে পরিচিত।সীতেশ বাবুর চিড়িয়াখানা একবার ঘুরে না আসলে হয় না। এই মিনি চিড়িয়াখানায় রয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির বিরল পাখি,চিত্রা হরিণ,মেছো বাঘ,বিভিন্ন প্রজাতির বানর,ভাল্লুক,সাপ ইত্যাদি।


শ্রীমঙ্গল হতে পারে বাংলাদেশের অন্যতম মনোরম পর্যটক স্থল। তাই আমি সংশ্লিষ্ট মহলের ব্যক্তিবর্গকে পর্যটকদের নিরাপত্তা, সৌন্দর্য বর্ধন ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন শ্রীমঙ্গল গড়ে তুলার আহব্বান জান্নাচ্ছি।